আদর্শ সন্তান লাভের ৭টি দু’আ

হাফেজ মাওলানা আব্দুল মাজীদ মামুন রাহমানী

আদর্শ সন্তান মানব জীবনের অনন্য সৌন্দর্য। মহান আল্লাহ তা’আলা এরশাদ করেন
اَلۡمَالُ وَالۡبَنُوۡنَ زِیۡنَۃُ الۡحَیٰوۃِ الدُّنۡیَا ۚ
অর্থ : সম্পদ ও সন্তান পার্থিব জীবনের শোভা। সূরা কাহাফ, আয়াত : ৪৬। একজন নেক সন্তানই পারে মা-বাবার মুখে হাসি ফোটাতে। পারে পূর্ণ সমাজটাকে আদর্শ সমাজ হিসেবে ঢেলে সাজাতে। কিন্তু এই সৌন্দর্য তখনই যখন সন্তান নেক ও উত্তম চরিত্রের অধিকারী হয়। তাই মহান আল্লাহর দরবারে নেক সন্তান লাভের জন্য দু’আ করা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এখানে আমরা কোরআনে বর্ণিত আদর্শ সন্তান লাভের ৭ টি দু’আ উল্লেখ করছি।

প্রথম দু’আ
رَبِّ ہَبۡ لِیۡ مِنَ الصّٰلِحِیۡنَ
উচ্চারণ : রাব্বি! হাবলি মিনাছ ছালিহিন ।
অর্থ : হে আমার প্রতিপালক! আমাকে এমন পুত্র দান করুন যে হবে সৎলোকদের একজন। সূরা ছাফ্‌ফাত, আয়াত : ১০০।
দ্বিতীয় দু’আ
رَبِّ ہَبۡ لِیۡ مِنۡ لَّدُنۡکَ ذُرِّیَّۃً طَیِّبَۃً ۚ اِنَّکَ سَمِیۡعُ الدُّعَآءِ
উচ্চারণ : রাব্বি হাবলি মিল্লাদুনকা যুররিইয়্যাতান ত্বইয়্যিবাহ। ইন্নাকা সামিউদ্দুআ’।
অর্থ : হে আমার প্রতিপালক! আমাকে আপনার পক্ষ থেকে কোন পবিত্র সন্তান দান করুন। নিশ্চই আপনি দু‘আ শ্রবণকারী। সূরা আলে-ইমরান, আয়াত : ৩৮ ।
তৃতীয় দু’আ
رَبَّنَا وَاجۡعَلۡنَا مُسۡلِمَیۡنِ لَکَ وَمِنۡ ذُرِّیَّتِنَاۤ اُمَّۃً مُّسۡلِمَۃً لَّکَ ۪ وَاَرِنَا مَنَاسِکَنَا وَتُبۡ عَلَیۡنَا ۚ اِنَّکَ اَنۡتَ التَّوَّابُ الرَّحِیۡمُ
উচ্চারণ : রাব্বানা ওয়াজ আ’লনা মুসলিমাইনি লাকা ওয়ামিন যুররিইয়্যাতিনা উম্মাতাম মুসলিমাতাল লাক। ওয়া-আরিনা মানাসিকানা ওয়াতুব আ’লাইনা ইন্নাকা আনতাত তাওয়াবুর রাহিম।
অর্থ : হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদেরকে আপনার একান্ত অনুগত বানিয়ে নিন এবং আমাদের বংশধরদের মধ্যেও এমন উম্মত সৃষ্টি করুন, যারা আপনার একান্ত অনুগত হবে এবং আমাদেরকে আমাদের ইবাদতের পদ্ধতি শিক্ষা দিন এবং আমাদের তওবা কবুল করে নিন। নিশ্চই আপনি এবং কেবল আপনিই ক্ষমাপ্রবণ ও অতিশয় দয়ালু। সূরা বাকারা, আয়াত : ১২৮।
চতুর্থ দু’আ
وَاَصۡلِحۡ لِیۡ فِیۡ ذُرِّیَّتِیۡ ۚؕ اِنِّیۡ تُبۡتُ اِلَیۡکَ وَاِنِّیۡ مِنَ الۡمُسۡلِمِیۡنَ
উচ্চারণ : ওয়া আছলিহলি ফি যুররিইয়্যাতি ইন্নি তুবতু ইলাইকা ওয়া ইন্নি মিনাল মুসলিমিন।
অর্থ : আমার জন্য আমার সন্তানদেরকে (সেই) যোগ্যতা দান করুন। আমি আপনার কাছে তওবা করছি এবং আমি আনুগত্যকারীদের অন্তর্ভুক্ত। সূরা আহ্‌ক্বাফ, আয়াত : ১৫।
পঞ্চম দু’আ
رَبَّنَا ہَبۡ لَنَا مِنۡ اَزۡوَاجِنَا وَذُرِّیّٰتِنَا قُرَّۃَ اَعۡیُنٍ وَّاجۡعَلۡنَا لِلۡمُتَّقِیۡنَ اِمَامًا
উচ্চারণ : রাব্বানা হাবলানা মিন আযওয়াজিনা ওয়া যুররিইয়্যাতিনা কুররতা আ’ইউনিওঁ ওয়াজ আ’লনা লিল মুত্তাক্বিনা ইমামা।
অর্থ : হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদেরকে আমাদের স্ত্রী ও সন্তানদের পক্ষ হতে দান করুন নয়নপ্রীতি এবং আমাদেরকে মুত্তাকীদের নেতা বানিয়ে দিন । সূরা ফুরকান, আয়াত : ৭৪।
ষষ্ঠ দু’আ
رَبِّ اجۡعَلۡنِیۡ مُقِیۡمَ الصَّلٰوۃِ وَمِنۡ ذُرِّیَّتِیۡ ٭ۖ رَبَّنَا وَتَقَبَّلۡ دُعَآءِ
উচ্চারণ : রাব্বিজআ’লনি মুক্বিমাছ ছালা-তি ওয়ামিন যুররিইয়্যাতি রাব্বানা ওয়া তাক্বাবাল দু’আ।
অর্থ : হে আমার প্রতিপালক! আমাকেও নামাজ কায়েমকারী বানিয়ে দিন এবং আমার সন্তানদের মধ্য হতেও (এমন লোক সৃষ্টি করুন, যারা নামাজ কায়েম করবে)। হে আমার প্রতিপালক! এবং আমার দু‘আ কবুল করে নিন। সূরা ইব্রাহিম, আয়াত : ৪০।
সপ্তম দু’আ
رَبَّنَا وَاَدۡخِلۡہُمۡ جَنّٰتِ عَدۡنِۣ الَّتِیۡ وَعَدۡتَّہُمۡ وَمَنۡ صَلَحَ مِنۡ اٰبَآئِہِمۡ وَاَزۡوَاجِہِمۡ وَذُرِّیّٰتِہِمۡ ؕ  اِنَّکَ اَنۡتَ الۡعَزِیۡزُ الۡحَکِیۡمُ ۙ
উচ্চারণ : রাব্বানা ওয়া আদখিলহুম জান্নাতি আ’দনিনিল্লাতি ওয়াত্তাহুম ওয়া মান ছালাহা মিন আ-বাইহিম ওয়া আযওয়াজিহিম ওয়া যুররিইয়্যাতিহিম। ইন্নাকা আনতাল আযিযুল হাকিম।
অর্থ : হে আমাদের প্রতিপালক! তাদেরকে প্রবেশ করান স্থায়ী জান্নাতে, যার ওয়াদা আপনি তাদের সাথে করেছেন। এবং তাদের পিতা-মাতা, স্ত্রী ও সন্তানদের মধ্যে যারা নেক লোক তাদেরকেও। নিশ্চই আপনিই পরাক্রশালী, প্রজ্ঞাময়। সূরা মু’মিন, আয়াত : ৮।

শিক্ষার্থী : বিন্নূরিয়া ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, করাচি, পাকিস্তান।