একনজরে এইচ টি ইমামের বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবন

চেরাগদানী : বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের অধিকারী এইচ টি ইমাম ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা। মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম মন্ত্রিপরিষদ সচিব এইচ টি ইমাম দেশ পরিচালনায় রাখেন অগ্রণী ভূমিকা। ২০১৪ সাল থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার (০৪ মার্চ) রাত ১টার পর রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর এ বর্ষীয়ান জনের মৃত্যুতে রাজনৈতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এইচ টি ইমাম : তার পুরো নাম হোসেন তৌফিক ইমাম। দেশ-বিদেশের মানুষ তাকে এইচটি ইমাম নামেই চিনতেন। ১৯৩৯ সালে টাঙ্গাইলে জন্ম নেয়া এ কৃতীজন পাকিস্তান আমল থেকেই রাজনীতিতে সম্পৃক্ত মানুষ ছিলেন। বাবার চাকরি সূত্রে তার শৈশব-কৈশোর কেটেছে বিভিন্ন জেলায়। ম্যাট্রিক পাস করেন ঢাকা কলেজিয়েট স্কুল থেকে। আর ইন্টারমিডিয়েট পাস করেন পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ থেকে। রাজশাহী কলেজ থেকে বিএ ডিগ্রি নিয়ে তিনি ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, অর্থনীতিতে এমএ ডিগ্রি নেন। তখন তিনি বাম ছাত্র সংগঠনে যুক্ত ছিলেন।

পড়াশোনা শেষে শিক্ষকতায় যোগ দিয়েছিলেন ১৯৫৮ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করা হোসেন তৌফিক ইমাম প্রথম জীবনে ছিলেন রাজশাহী সরকারি কলেজের প্রভাষক। মেধাবী ইমাম থিতু হতে পারেননি শিক্ষকতায়। ১৯৬১ সালে পাকিস্তান সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় সিএসপিদের মধ্যে চতুর্থ স্থান লাভ করে পাকিস্তান সরকারের উচ্চ পদে যোগ দেন। এই গুণীজন ১৯৬৩-১৯৬৪ মেয়াদে তৎকালীন নওগাঁর মহকুমা প্রশাসক হিসেবে ছিলেন। পরবর্তীতে সরকারি চাকরি সত্ত্বেও তিনি মুক্তিযুদ্ধে সম্পৃক্ত হন। ১৯৭১-এর ১৬ ডিসেম্বর দেশ স্বাধীন হওয়ার পর স্বাধীন বাংলার ইতিহাসে প্রথম ক্যাবিনেট সচিবের দায়িত্ব পালন করেন এ নীতিপ্রণেতা।

স্বাধীনতার পর ১৯৭৫ সালের ২৬ অগাস্ট পর্যন্ত তিনি মন্ত্রিপরিষদের সচিবের দায়িত্বে ছিলেন। এরপর ১৯৭৮ থেকে ১৯৮৪ পর্যন্ত সাভারের লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রকল্প পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। পরে তিনি যোগাযোগ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সচিবও হন। অবসর নেওয়ার পর আওয়ামী লীগে সক্রিয় হন এইচ টি ইমাম। দলের নির্বাচন পরিচালনার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন তিনি। আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান ছিলেন, যে কমিটির চেয়ারম্যান শেখ হাসিনা।

২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় যাওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে উপদেষ্টার দায়িত্ব দেন। প্রথমে তিনি জনপ্রশাসন বিষয়ক উপদেষ্টা ছিলেন। ২০১৪ সালে তাকে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা নিয়োগ করা হয়। মুক্তিযোদ্ধা পরিচালনা বিষয়ে এইচ টি ইমামের রচিত কয়েকটি গ্রন্থকে বেশ গুরুত্ব দেন গ্রন্থ সমালোচকরা। এইচ টি ইমাম নিজে কখনও নির্বাচনে না দাঁড়ালেও তার ছেলে তানভীর ইমাম সিরাজগঞ্জের একটি আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য।