একনজরে ধানমন্ডির সেরা কিছু বুফে রেস্তোরাঁ

যখন খাবারের সঙ্গে যুক্ত হয় মুখরোচক শব্দের, তখন শুধু ক্ষুধা নিবারণই সেখানে একমাত্র উদ্দেশ্য নয়। পেটচুক্তির স্বতঃস্ফূর্ত প্রশ্রয়ে কোনো রকম ভণিতা ছাড়াই উন্মোচিত হয় বিনোদনের প্রবারণা। আর এখানেই ভোজন রসিক শব্দের সার্থকতা। খাবারের চিত্তাকর্ষক সংগ্রহশালা উদ্দীপনার সঙ্গে সঙ্গে জিভেও যেন জোয়ার তোলে। আর সেটাকে জলচ্ছাসে রূপ দিতেই যেন বুফের বিকাশ, যা এখনকার সবচেয়ে জনপ্রিয় ভোজন পদ্ধতি। বিশেষ করে রাজধানীর ধানমন্ডি রীতিমত বুফে পাড়ায় পরিণত হয়েছে। আজ দেখে নেবো ঢাকার ধানমন্ডিতে অবস্থিত সেরা কিছু বুফে রেস্তোরাঁ।

টেস্ট ব্লাস্ট
বুফে প্যাকেজগুলো বেশ নাগালের মধ্যে থাকায় বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই সবার পছন্দের তালিকায় শীর্ষে আছে এই টেস্ট ব্লাস্ট। তাদের দুপুরের ৫৫০ টাকার প্যাকেজে আইটেম আছে ৫৫+। আর রাতের ৬৫+ আইটেমের জন্য খরচ করতে হবে ৬০০ টাকা। ৩ থেকে ৬ বছরের বাচ্চাদের জন্য এই খরচটা অর্ধেক হয়ে যায়। রেস্তোরাঁটির অবস্থান সাতমসজিদ রোডের ধানমন্ডি ৯/এ, ৭৩৬ র‍্যাংগ্স কেবি স্কয়ারের লেভেল ১০-এ। দুপুরের বুফের জন্য নির্ধারিত সময় দুপুর ১ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত। আর রাতের পর্ব সন্ধ্যা ৭ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত। আগে থেকে যোগাযোগের জন্য ফোন দেয়া যেতে পারে। বিস্তারিত মেনুর জন্য ঘুরে আসুন তাদের ফেসবুক পেজটি।

জেনিয়াল বুফে
টেস্ট ব্লাস্টের মাত্র দুই লেভেল নিচেই এই রেস্তোরাঁটি জন্মদিনসহ বিভিন্ন ছোট ছোট পার্টির জন্য জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এর পেছনে মূল কারণ সাশ্রয়ী বুফে প্যাকেজ। ৭০+ আইটেমে জন্য দুপুর-রাতে উভয় বুফের দাম ৫৯৯ টাকা। ৩ থেকে ৬ বছরের শিশুদের জন্য এই মূল্য থেকে আরও ৫০ শতাংশ ডিসকাউন্ট দেয়া হয়। রেস্তোরাঁর অতিথি ধারণ ক্ষমতা ১৩০+, তাই আগে থেকেই নিজের আসনটি রিজার্ভ করে নিতে হবে। দুপুর ১ টা থেকে বিকাল ৪ টা বরাদ্দ মধ্যাহ্নভোজের জন্য। আর নৈশভোজ চলে সন্ধ্যা ৭ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত। যাওয়ার আগে তাদের ফেসবুক পেজ থেকে মেনুগুলো দেখে ম্যাসেঞ্জারে যোগাযোগ করতে পারবেন।

বুফে ম্যানিয়া
বাজেট বুফে রেস্তোরাঁগুলোর মধ্যে বেশ কম সময়েই সুনাম অর্জন করেছে বুফে ম্যানিয়া। এখানে দুপুরের বুফেতে ৭০+ আইটেমের জন্য জনপ্রতি খরচ করতে হবে ৫৯৯ টাকা। অন্যদিকে রাতের ৬৯৯ টাকার প্যাকেজে উপভোগ করা যাবে ৮০-এরও বেশি আইটেম। দুই প্যাকেজেই কোনো খরচ ছাড়াই ইচ্ছে মত ড্রিঙ্ক অর্ডার করা যায়। এখানে খাবারের জন্য দেড় শতাধিক অতিথি বসতে পারেন। তাই ফোন করে সিট রিজার্ভ করে নেয়াটা সবচেয়ে ভালো। তাদের কন্টাক্ট নাম্বার ০১৭৯৮৮৯৭৫৭৭। এছাড়া বুফে ম্যানিয়ার ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারেও নক দিয়ে সিট ও মেনু সম্বন্ধে বিস্তারিত জানা যাবে। মধ্যাহ্নভোজের সময়সীমা দুপুর দেড়টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪ টা। আর রাতের খাবারের সময় সন্ধ্যা ৭ টা থেকে শুরু হয়ে রাত ১০ টা পর্যন্ত চলে। এই ব্যুফেগুলো উপভোগ করতে হলে যেতে হবে সাত মসজিদ রোডের নাভানা জিএইচ হাইটস্-এর লেভেল ৯-এ।

বুফে স্টোরিস
সঠিক মূল্য দিয়ে তা পুরোপুরি পুষিয়ে নিতে হলে অনায়াসেই চলে যেতে পারেন বুফে স্টোরিসে। ৯০টিরও বেশি আইটেম দিয়ে সাজানো তাদের দুপুরের বুফেটি জনপ্রতি ৬৯৯ টাকা। ৭৯৯ টাকার রাতের বুফেতে থাকছে ১০৫টিরও বেশি আইটেম। এগুলোতে আলাদা করে ভ্যাটসহ অন্যান্য খরচের কথা ভাবতে হবে না। যেকোনো স্পট রিজার্ভ করার জন্য অথবা অন্যান্য তথ্যের জন্য তাদের ফেসবুক পেজটি দেখে নিতে পারেন। প্রচণ্ড ভীড় এড়াতে দুপুর ১ টা থেকে বিকাল ৪ টার মধ্যাহ্ন ভোজের সময়টিকে খেয়াল রেখে আগে ভাগেই চলে যেতে হবে। এটি সন্ধ্যা ৭ টা থেকে রাত ১০ টার নৈশভোজের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। রেস্তোরাঁটির অবস্থান সাতমসজিদ রোডের ১০/এ সংলগ্ন অংশের ৫৪ নং বাড়ি তথা ইম্পেরিয়াল আমিন সেন্টারের লিফ্টের ৬-এ।

বুফে লাউঞ্জ ধানমন্ডি
স্বল্প খরচে দেশীয় খাবারের পাশাপাশি বিদেশি খাবারের স্বাদ দিবে এই রেস্তোরাঁটি। দুপুর ও রাতের দুই বুফেতেই তাদের প্যাকেজ ৬৯৯ টাকা, যেখানে আছে বৈচিত্র্যপূর্ণ ৮৫+ আইটেম। ৩ বছর পর্যন্ত বাচ্চাদের জন্য এটি একদম ফ্রি। আর ৩-এর পর থেকে ৬ বছর বয়সী বাচ্চাদের জন্য অর্ধেক দাম রাখা হয়। ৭৪৬ সাত মসজিদ রোড (পুরনো ৯/এ)-এর রূপায়ন জেডআর প্লাজার ৭ম তলার এই রেস্তোরায় ৩ শতাধিক অতিথি বসতে পারেন। সিট রিজার্ভ, মেনু বা অন্যান্য তথ্য জানতে তাদের ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে যোগাযোগ করতে পারেন। এখানে দুপুরের খাবারের সময় দুপুর ১ টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৪ টায় শেষ হয়। আর রাতের বুফে শুরু হয় সন্ধ্যা ৭টা থেকে, যার শেষ সময় রাত ১০ টা।

রেড ক্লিফ
খুব বেশি পরিচিত নাম না হলেও সঠিক মূল্যে মান সম্পন্ন খাবার দেয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে রাখা যেতে পারে রেড ক্লিফকে। ৭৫+ আইটেম দিয়ে সাজানো তাদের দুপুরে বুফের জন্য খরচ করতে হবে ৬৫০ টাকা। আর রাতের বেলা ৮৫+ আইটেমের জন্য গুনতে হবে ৭৫০ টাকা। বুফে লাউঞ্জের মত এরাও ৩ বছর পর্যন্ত বাচ্চাদের জন্য ফ্রিতেই খাবার সরবরাহ করছে। আর ৩-এর পর থেকে ৬ বছর বয়সীদের জন্য রাখা হচ্ছে অর্ধেক দাম।এদের আসন ধারণ ক্ষমতা ১৫০ জন, তাই আগে থেকে যোগাযোগ করে যাওয়াটাই উত্তম। এর জন্য তাদের ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে নক করা যেতে পারে। এই রেস্তোরাঁয় যেতে হলে যেতে হবে ৯/এ সাতমসজিদ রোড ধরে গাওসিয়া টুইন পিকের ৪২ এবং ৪৩ নাম্বার বাড়ির লেভেল ৯-এ।

ক্যাফে রিও
মাঝারি বাজেটের মধ্যে দেশ সেরা বুফে রেস্তোরাঁ হচ্ছে ক্যাফে রিও। তাদের বিশেষত্ব হলো সাড়ে ৪ শতাধিক আসন বিশিষ্ট রেস্তোরাঁ এবং রবি থেকে বৃহস্পতিবারের বুফেতে হাসের ভুনা গোশত। সাধারণত তাদের বুফে মূল্য জনপ্রতি ৮৯৯ টাকা, যার ভেতর শুক্রবার ও শনিবার ভ্যাট ও অন্যান্য খরচ অন্তর্ভূক্ত করা হয়। বাকি দিনগুলোর ৭৯৯ টাকার প্যাকেজের শর্ত হচ্ছে, মধ্যাহ্ন বা নৈশ যে কোনো ভোজের জন্য আগত অতিথি গ্রুপে নূন্যতম ৪ জন সদস্য সংখ্যা থাকতে হবে। এখানে আরও একটি সুবিধা হচ্ছে- পার্টির জন্য আলাদা করে কোনো খরচ বহন করতে হবে না, শুধু খাবারের দাম দিলেই হবে। অধিকাংশ রেস্তোরাঁগুলোর মত এখানেও ৩ থেকে ৬ বছরের শিশুদের জন্য অর্ধেক মূল্যের ব্যবস্থা আছে। দুপুর ও রাতের বুফের সময় অন্যান্য রেস্তোরাঁ মতই যথাক্রমে দুপুর ১ টা থেকে বিকাল ৪ টা এবং সন্ধ্যা ৭ টা থেকে রাত ১০ টা। আগে থেকে বুকিং-এর জন্য ০১৩০৫২৫৩৯৪৯ নাম্বারে কল করতে হবে। মেনুর আইটেমগুলো দেখার জন্য ক্যাফে রিওর ফেসবুক পেজটি ঘুরে আসতে পারেন। ক্যাফে রিওর অবস্থান ১০/এ সাত মসজিদ রোডের ৫৪ নং বাড়ি অর্থাৎ সেই বুফে স্টোরিসের ভবন ইম্পেরিয়াল আমিন সেন্টারের লেভেল ১১তে।

দ্যা ফরেস্ট লাউঞ্জ
৭০+ আইটেমের জন্য ১০২৫ টাকার দুপুরের বুফে, আর ৮০+ আইটেমের ১২১৩ টাকার রাতের বুফে অতিরিক্ত মনে হতে পারে। কিন্তু তাদের অভিনব সবুজ প্রাকৃতিক আভরণে সজ্জিত ইন্টেরিয়র নিমেষেই দূর করে দিতে পারে সেই দ্বিধা। ১০/এ সাতমসজিদ রোডের ইম্পেরিয়াল আমিন আহমেদ সেন্টারের পুরো ছাদটাকে পরিণত করা হয়েছে মনোরম পরিবেশ ঘেরা রেস্তোরাঁয়। শুক্রবারে তাদের বুফের বিশেষ অফার মাটন কাচ্চি। প্রতি বুধবারে চলে র‍্যাফেল বুফে, যেদিন দুপুর বা রাতে যে কোনোও ভোজে অংশ নিয়ে জিতে নেয়া যেতে পারে সম্পূর্ণ ফ্রি একটি বুফে। তাদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলার জন্য এবং ফরেস্ট লাউঞ্জের সর্বশেষ খবর জানতে চোখ রাখুন তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে।

গার্লিক অ্যান্ড জিঞ্জার
এটি ইম্পেরিয়াল আমিন আহমেদ সেন্টারের আরও একটি বিলাসবহুল রেস্তোরা। বুফে স্টোরিস থেকে এক ফ্লোর উপরে তথা লেভেল ৭-এ উঠলেই পাওয়া যাবে গার্লিক এ্যান্ড জিঞ্জার। জায়গা কিছুটা সংকীর্ণ হলেও এদের দেশি-বিদেশি খাবারে পাওয়া যায় পূর্ণ আভিজাত্যের ছোঁয়া। তাদের ১,২৯৯ টাকার বুফেতে একটা আলাদা বিশেষত্ব দিয়েছে নিহারি। ৩ থেকে ৬ বছরের বাচ্চাদের জন্য এই মূল্য কমিয়ে ৭২৫ টাকা রাখা হয়। এদের দুপুরের সময়টা একটু এগিয়ে আনা হয়েছে সাড়ে ১২ টায়। তবে শেষ হয় অন্যান্যগুলোর মতই বিকাল ৪ টায়। তাদের বৈচিত্র্যপূর্ণ খাবারগুলো থেকে নিজের প্রিয় খাবারগুলো বেছে নিতে তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি দেখে নিতে পারেন। সশরীরে যাবার আগে এই অনলাইন পেজেই তাদের আভিজাত্যের সামগ্রিক ধারণা পাওয়া যাবে। এছাড়া তাদের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য রয়েছে ফোন এবং ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার।

দ্যা প্যান প্যাসিফিক লাউঞ্জ
রেড ক্লিফের ঠিক এক ফ্লোর নিচে অর্থাৎ গাউসিয়া টুইন পিকের লেভেল ৮-এ অবস্থিত দ্যা প্যান প্যাসিফিক লাউঞ্জ। যে কোনোও পার্টির আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের জন্য দারুণ এক পছন্দ হতে পারে ৪০০ আসন ক্ষমতার এই রেস্তোরাঁ। দুপুর ১ টা থেকে বিকাল ৪ টার বুফে প্যাকেজ মূল্য ১৩৯৯ টাকা। সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টা থেকে পরিবেশন করা বুফের দাম এখন ১৫৯৯ টাকা। নৈশভোজ চলে রাত সাড়ে ১০ টা অব্দি। ৪ বছরের নিচের বাচ্চাদের জন্য ফ্রিতে পরিবেশন করা হয়। তবে অর্ধেক দাম রাখা হয় ৪ থেকে ৭ বছর বয়সীদের জন্য। সরাসরি কল করে অগ্রিম বুকিং দেয়া যাবে। তবে এখানে খেয়াল রাখতে হবে যে, তারা কোনো ব্যক্তিগত বিকাশ নম্বরে অগ্রিম বুকিং নেয় না। এছাড়া মেনু সহ রেস্তোরাঁর যাবতীয় অফারের নিয়মিত আপডেট দেয়া হয় তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে।

ভোজন রসিকদের অনেকেরই অভিরুচি থাকতে পারে একসঙ্গে হরেক রকমের খাবারের বিপুল সম্ভার একসঙ্গে দেখার। ধানমন্ডির এই বুফে রেস্তোরাঁগুলো সেই সাধ মিটাতে সক্ষম। স্বল্প খরচে গোগ্রাসে গেলার পুরো আনন্দটা পেতে অনায়াসেই নির্বাচন করা যেতে পারে টেস্ট ব্লাস্ট ও জেনয়িাল বুফে। অবস্থান সংকুলানের দিকে থেকে ক্যাফে রিওকে এগিয়ে রাখা যায়। খাবারের সঙ্গে যদি খাবারের জায়গাটিরও শৈল্পিকতাকে গুরুত্ব দেয়া হয়, তাহলে নির্দ্বিধায় যাওয়া যেতে পারে দ্যা ফরেস্ট লাউঞ্জে। সর্বপরি, যারা তেমন একটা খেতে পছন্দ করেন না তাদের জন্যও এই রেস্তোরাঁগুলো প্রতীয়মান হবে এক ভিন্ন জগতের প্রবেশদ্বার হিসেবে।