ঘুমের ‘অসুখ’ আজই বিদায় করতে যা করবেন

শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার জন্য ঘুমের বিকল্প নেই। নিয়মিত ঘুম না হলে দেহে বাসা বাঁধে নানান অসুখ। গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত ঘুম অনেক রোগের মহাঔষধ হিসেবে কাজ করে। তাই যাদের ঘুমের সমস্যা আছে তাদের জন্য আজ থাকছে কয়েকটি পরামর্শ।

১. দেহের সঙ্গে বিছানার একটি যোগসাজস আছে। গবেষণায় দেখা গেছে, মানুষের দেহ বিছানার পার্থক্য বুঝতে পারে। তাই ঘুমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য প্রথমেই যা করণীয় তা হলো, একই বিছানায় ঘুমানোর অভ্যাস করুন। অর্থাৎ, ঘুমের জন্য বিছানা নির্দিষ্ট করে রাখুন। এতে করে আপনি যখন ওই বিছানায় যাবেন, তখন দেহ বুঝতে পারবে এখন ঘুমের সময়।

২. যোগীরা বলেন, বিছানাও দেহের উপস্থিতি বুঝতে পারে। নির্ধারিত বিছানায় ঘুম ছাড়া অন্য কোনো কাজ করবেন না। যেমন বইপড়া বা ল্যাপটপ চালানো কিংবা হোমওয়ার্ক করা ইত্যাদি। শুধু ঘুমানোর ইচ্ছে হলেই বিছানায় যান। এতে করে বিছানাও বুঝতে পারবে আপনি ঘুমাতে এসেছেন। আপনি যদি যখন তখন বিছানায় গড়াগড়ি করেন তাহলে বিছানা আপনার দেহকে ঘুমের জন্য প্রস্তুত করতে দ্বিধায় পড়ে যাবে।

৩. ভালো ঘুমের জন্য চাই পূর্ণ অন্ধকার রুম। বিছানা যেমন ঘুমের জন্য দেহকে প্রস্তুত করে তেমনি অন্ধকারও গভীর ঘুমের দেশে হারিয়ে যেতে আপনাকে সাহায্য করবে। অনেকেই হালকা আলো জেলে ঘুমাতে পছন্দ করেন। এটা ঘুমের পক্ষে তো ভালো নয়-ই, স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকি।

৪. রাতে ভালো ঘুমের প্রস্তুতি বিকেলে থেকেই নিতে হবে। বিকেলে হালকা ব্যায়াম করুন। কাজ না থাকলে ৮টার মধ্যে শুয়ে পড়ুন। রাতে খাওয়ার পর কিছু সময় হাঁটুন।

৫. ভুলেও বিছানায় মোবাইল নিয়ে শুতে যাবেন না। মোবাইল পুরোপুরি সাইলেন্ট করে তারপর বিছানায় আসুন। একইভাবে মাথায় কোনো দুশ্চিন্তা বা পরিকল্পনা নিয়ে ঘুমাতে যাবেন না। এক্ষেত্রে বিষয়টি খাতায় লিখে বিছানায় আসুন।