বুকের ব্যথা কী করোনভাইরাস সংক্রমণের লক্ষণ?

করোনাভাইরাস মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ প্রথমটির চেয়ে মারাত্মক। প্রতিনিয়তই সংক্রমণের হার বেড়ে চলেছে। শুষ্ক কাশি, দুর্বলতা, গন্ধ এবং স্বাদ হ্রাস করোনার সাধারণ লক্ষণ। তবে সম্প্রতি বুকে ব্যাথার কথা জানিয়েছেন অনেক করোনা আক্রান্ত রোগী। চিকিৎসকরা বলছেন, এই বছর করোনা আগের চেয়ে বেশি কঠিন উপসর্গ নিয়ে আসছে। এবার অনেকের পেট ব্যাথা এবং বুকে ব্যথার মতো উপসর্গ দেখা দিচ্ছে।

কী কী কারণে বুকে ব্যথা হয় করোনা রোগীদের?
শুধু বুকে ব্যথা থাকার কারণ নেই বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকেরা। তার সঙ্গে কাশির দমক, খুব বেশি গলা ব্যথা ও শ্বাস নিতেও অসুবিধা হতে পারে। কারণ বুকে ব্যথা হচ্ছে মানে শ্বাসনালিতে সংক্রমণ ছড়িয়েছে। যেসব কারণে ‍বুকে ব্যাথা হয় করোনায় আক্রান্ত রোগীদের—

শুকনো কাশি
করোনায় আক্রান্ত রোগীদের শুষ্ক এবং কখনো কখনো খুব বেশি কাশি হয়। এতে তাদের পাঁজরের কাছে পেশীগুলো ছিঁড়ে যায়। যা শ্বাসনিতে তীব্র অস্বস্তি সৃষ্টি করে।

নিউমোনিয়া
নিউমোনিয়া এমন ব্যাক্তিদের মধ্যে দেখা যায় যারা করোনায় গুরুত্বরভাবে সংক্রমিত। এটি ফুসফুসের ভিতরে উপস্থিত বায়ু থলিতে প্রদাহের কারণে ঘটে। পরবর্তীতে এটি ফুসফুসের অভ্যন্তরে তরল বাড়িয়ে তুলতে পারে যা বুকে ব্যাথার অন্যতম কারণ।

ফুসফুসের সংক্রমণ
ফুসফুসে প্রদাহের কারণে বুকে ব্যথা হতে পারে। যদি কোনো করোনা রোগী বুকে ব্যাথায় ভুগেন তবে সংক্রমণের তীব্রতা পরিমাপের জন্য এক্স-রে বা সিটি স্ক্যান করতে হবে এবং সে অনুযায়ী চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে।

রক্তের মাধ্যমে প্রবাহিত ভাইরাস
কিছু ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে রক্তের মাধ্যমে ফুসফুসে পৌঁছে যাচ্ছে ভাইরাস। রক্তের জমাট ভেঙে ফুসফুসে ছড়িয়ে পড়লে এটি ফুসফুসের এম্বোলিজমের কারণ হতে পারে। যা অতিরিক্ত বুকের ব্যথা সৃষ্টি করে।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া