রিভিউ: আজ আমার মন ভালো নেই

এস এম তৌফিক।।

আজ আমার মন ভালো নেই বইটির প্রচ্ছদকারী লেখকের গল্পের বিষয়বস্তুকে ফুটিয়ে তুলেছেন দারুণভাবে। বইটির প্রচ্ছদ দেখেই পাঠক কিছুটা ধারণা করতে পারবেন যে, গল্পটি আবর্তিত হয়েছে কোনো নারী চরিত্রকে ঘিরে। তবে প্রচ্ছদটি পাঠকের মনে প্রশ্ন জাগাবে, তবে কী সেখানে হয়তো অন্যরকম কিছু লুকিয়ে আছে? যা খুব সহজেই পাঠককে বইটির কাছে টানবে, সম্পুর্ণ গল্পটা জানার ইচ্ছা জাগাবে।

বর্তমান সময়ের তরুণ লেখক শাদবিন শাকিলের জন্ম ১৪ ডিসেম্বর ১৯৯৫ সালে চট্টগ্রামে। কিশোর বয়সে বেড়ে ওঠেন দক্ষিণাঞ্চলের কীর্তনখোলা নদীর পাড়ের শহর বরিশালে। বর্তমানে তিনি সরকারি ব্রজমোহন কলেজ, বরিশাল থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক শেষে স্নাতকোত্তরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

স্কুল জীবন থেকেই তার গল্প পড়া এবং কবিতা আবৃত্তির শখ ছিল । নহলী প্রকাশনীর প্রতিষ্ঠাতা এবং সন্মানিত লেখক বদরুল মিল্লাত স্যারের উৎসাহ ও অনুপ্রেরণায় লেখা “যদি তব দেখা পাই” তার প্রথম উপন্যাস। ২০২০ বইমেলায় নহলী থেকে প্রকাশিত হওয়া বইটি ব্যাপক পাঠকপ্রিয়তা পায়। আজ আমার মন ভালো নেই” তার লেখা দ্বিতীয় উপন্যাস।

গল্প সংক্ষেপ
মূলত তিনটি পরিবারের কাহিনীকেই গল্পটিতে কবি একত্রিত করে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন। যেখানে সোমা ও নায়লা মামাতো-ফুফাতো বোন। গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্রে প্রথমে দু’বোনকে ভাবলেও ধীরে ধীরে নায়লা চরিত্রটিকেই কেন্দ্রীয় চরিত্র হিসেবে ফুটিয়ে তোলা হয় এ গল্পে। গল্পের এক পর্যায়ে সোমাকে প্রেমের নামে ফাঁদে ফেলা সাব্বির নামের এক যুবক নায়লাকেও ফাঁদে ফেলার চেষ্টা করে। এভাবেই এগুতে থাকে গল্প যেখানে দেখা মিলবে সমাজ জীবনে পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যা, মাদকের অভিশাপ,প্রতিশোধ, আত্নত্যাগ, স্বার্থপরতা, লোভ ইত্যাদি।

পাঠ পর্যালেচনা: গল্পটি মূলত একটি সামাজিক গল্প। আমাদের সমাজের পরিবারগুলোতে ঘটে যাওয়া সাধারণ গল্পকে লেখক অসাধারণভাবে ফুটি তুলে ধারাবাহিকভাবে বর্ণনা করেছেন। এ গল্পে আপনি আপনার আশেপাশের কোনো পরিবারের প্রতিচ্ছবিই খুজে পাবেন বলে আশা করি। গল্পটি প্রথমদিকে মনে হবে এটা কোনো সাধারণ প্রেমের গল্প, তবে মজাটা এখানেই পাঠক যখন গল্পের গভীরে যেতে শুরু করবে তখনই সে অবাক হয়ে ভাববে যে আরে! এত আমাদের সমাজেরই ঘটে যাওয়া গল্প। গল্পটি অতিচেনা লাগলেও লেখকের লেখায় আপনি ভিন্নভাবে গল্পটিকে উপলব্ধি করতে পারবেন। কি নেই এ গল্পে! আত্নত্যাগ, প্রেম-ধোকা, লোভ, ফাঁদ,স্বার্থপরতা সব কিছুর যেনো দারুণ এক প্যাকেজ নিয়ে বসেছেন এমনটি মনে হবে।

এছাড়াও গল্পে মাদকসেবীর পরিণাম এবং একজন মাদকাসক্ত শুধু নিজের পরিবার ই নয় তার সাথে জড়িয়ে থাকা জীবনগুলোকে এবং আশেপাশের সমাজকে কী পরিমাণ সমস্যায় ফেলে! সে দিকটিও ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। যা বর্তমান সমাজের জন্য যা শিক্ষণীয় দিক বলে মনে করি।

বিশেষ দিক: লেখক তার উপন্যাসের ভিতরে আরেকটি উপন্যাসের প্লট তৈরী করেছেন। যা খুবই চমৎকার এবং পাঠকের কাছেও দারুণ লাগবে।

প্রিয় লাইন: “আরিফ, আজ আমার মন ভালো নেই, তুমি আমার মন ভালো করে দাও।”

ঘাটতি: এই উপন্যাসের বিশেষ যে দিকটি উল্লেখযোগ্য সেটা হচ্ছে উপন্যাসের ভেতরেও আরেকটা উপন্যাস লেখার প্লট। ঘাটতি বিবেচনা করলে এ দিকটাকেই হয়তো অনেকে বিবেচনা করবেন। কারণ, উপন্যাসের ভেতরে শুরু করা উপন্যাসটি আর শেষ করা হয়নি। তবে এর উল্টো কারণও থাকতে পারে। হতে পারে এটা লেখকের লেখার কৌশল, তিনি হয়তো ইচ্ছে করেই ভেতরের উপন্যাসটা শেষ করেননি কিংবা করতে চাননি পাঠকদেরকে ভাবনার জগতে ঠেলে দিয়ে উপন্যাসের শেষটা কেমন হতে পারে? এমন দ্বিধা-দ্বন্দে হাবুডুবু খাওয়াবেন বলে।

নহলী কিছু তরুণকে নিয়ে প্রকাশনার জগতে যে কাজ করে যাচ্ছে, শাদবিন শাকিলকে তারই ফলাফল বলা চলে। তার এই বইটি পড়ে পাঠকের খুবই ভাল লাগবে এবং তাদের মনে একটিবারের জন্যও তার লেখার ধার-ভার নিয়ে দ্বিধাবোধ কাজ করবে না বলেই আশা করি। বইটি শেষ করার পর অনেকেই হয়তো লেখকের পরবর্তী বইটি কবে আসছে? মনে এমন প্রশ্ন নিয়ে অপেক্ষায় থাকবেন।

পার্সোনাল রেটিং: ৭.৮/১০

এক নজরে বই
বই: আজ আমার মন ভাল নেই
লেখক: শাদবিন শাকিল।
প্রচ্ছদ: রিফাতুল ইসলাম।
মলাট মূল্য: ২৪০/-
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ১১২
প্রকাশনী: নহলী